তাহলে গরুর গাড়ির দৌড় এখন আর মহারাষ্ট্রে বেআইনি নয়। ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে রাজ্যের বিধানসভায় প্রিভেনশন অফ ক্রুয়েলটি টু অ্যানিমালস বিল বা পশুপ্রাণীর প্রতি নিষ্ঠুরতা প্রতিরোধক বিলটি (মহারাষ্ট্র সংশোধনী) গৃহীত হয় যার ফলে এইরকম দৌড় বৈধ বলে স্বীকৃত হয়। তামিল নাড়ুতে জাল্লিকাট্টুকে বৈধতা প্রদানের উদ্দেশ্যে যে আইন পাশ করানো হয়, মহারাষ্ট্রের বিলটি খানিকটা সেইরকম।

বর্তমানে, রাজ্য সরকারের সূত্র থেকে সংবাদ মাধ্যম খবর পেয়েছে যে, রাষ্ট্রপতি মহারাষ্ট্র বিধানসভার পাশ করা বিলটিতে সম্মতি দিয়েছেন।

এইসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এক দশক আগের স্মৃতি তাজা হয়ে আসে। চন্দ্রপুর জেলার দেলানওয়াড়ি গ্রামের গরুর গাড়ির দৌড়ে একটা গোটা দিন কাটিয়েছিলাম – তখন এই গরুর গাড়ির দৌড় বেআইনি (এবং চূড়ান্ত জনপ্রিয়) ছিল। এটা ২০০৭ সালের গোড়ার কথা, খুব সামান্যের জন্যই আমি গরুর গাড়ি চাপা পড়ে মারা যাওয়া, হাতে গোনা বিরলতম অভাগাদের দলে নাম লেখাতে গিয়েও জোর বেঁচে গিয়েছিলাম।

বাংলা অনুবাদ: স্মিতা খাটোর


স্মিতা খাটোর কলকাতার বাসিন্দা। তিনি পিপলস আর্কাইভ অফ রুরাল ইন্ডিয়ায় ট্রান্সলেশনস কোওর্ডিনেটর এবং বাংলা অনুবাদক।

পি. সাইনাথ পিপলস আর্কাইভ অফ রুরাল ইন্ডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। বিগত কয়েক দশক ধরে তিনি গ্রামীণ ভারতবর্ষের অবস্থা নিয়ে সাংবাদিকতা করেছেন। তাঁর লেখা বিখ্যাত বই ‘এভরিবডি লাভস্ আ গুড ড্রাউট’।

Other stories by P. Sainath